মোবাইল অ্যাপস ডেভেলপিং এর আয়ের উৎস

মোবাইল অ্যাপস ডেভেলপিং এর আয়ের উৎস:

মোবাইল আপ্লিকেশন তৈরি করে অনেক উপায়ে আয়ের ক্ষেত্র তৈরি করা যায়। বর্তমানে পৃথীবিতে ৩ বিলিয়ন স্মার্টফোন ব্যবহারকারী রয়েছেন। দিন দিন এই ব্যবহারকারী আরও দ্রুত গতিতে বৃদ্ধি পাচ্ছে। মোবাইল অ্যাপস গুলোর মধ্যে প্রধানত হল:

১) প্রিমিয়াম অ্যাপস,

২) এককালীন পেইড অ্যাপস,

৩) ফ্রি অ্যাপস সাথে আ্যডস সংযুক্ত করা,

৪) ই কমার্স অ্যাপস

৫) গেমস

১) প্রিমিয়াম অ্যাপস:

প্রিমিয়াম অ্যাপস হল মাসিক বা বাৎসরিক সাবস্ক্রিপশন ফি ভিত্তিক সিস্টেম। এরকম অ্যাপ এ কিছু ইউনিক কনটেন্ট থাকে। যেমন- মুভি, নাটক, গান ইত্যাদি। এই সেবা গুলো গ্রাহক কিছু সময়ের জন্য ক্রয় করে উপভোগ করেন। আর এরকম অ্যাপস তৈরি করতে প্রথমে মুভি, নাটক, গান প্রোডাকশন করে এমন সংস্থার সাথে চুক্তি ভিত্তিক একটি সিস্টেমের মাধ্যমে যেতে হবে। তারপর আছে ক্লাউড ড্রাইভ সেবা- একটি নির্দিষ্ট সাবস্ক্রিপশন ফি এর ভিত্তিতে গ্রাহকের ডেটা সিকিউর সার্ভারে জমা রেখে সর্বোচ্চ নিরাপত্তার মাধ্যমে সংরক্ষণ করা। এরকম কিছু অ্যাপ হল - hoichoi , Netflix , Gaana , Dropbox ইত্যাদি।

২) এককালীন পেইড অ্যাপস:

এককালীন পেইড অ্যাপস গ্রাহকরা ফি পে করে একেবারে ক্রয় করে নেন। এই অ্যাপ গুলো সাধারনত নির্দিষ্ট কিছু কাজ করার জন্য তৈরি করা হয়। যেমন - অ্যাডভান্সড ক্যালকুলেটর(সাইন্টিফিক, ভ্যাট, ট্যাক্স ইত্যাদি ), দৈনন্দিন আয়-ব্যয় হিসাবের অ্যাপস, ছবি এডিটিং ইত্যাদি। এরকম কিছু অ্যাপ হল - scientific calculator , VPN Pro ইত্যাদি।

৩) ফ্রি অ্যাপস সাথে আ্যডস সংযুক্ত করা:

ফ্রি তে গ্রাহকদের অ্যাপ সেবা দিয়ে পারিশ্রমিক হিসেবে বিনিময়ে গ্রাহকদের এ্যাড দেখিয়ে উপার্জন করা যায়। এক্ষেত্রে গ্রাহকদের কোন টাকা পে করতে হয় না সেবার বিনিময়ে- কিন্তু অ্যাপসের মালিক বিভিন্ন অ্যাড নেটওয়ার্ক কোম্পানি গুলোর অ্যাড মানিটািজেশন করে উপার্জন করতে পারেন। এরকম অনেকগুলো অ্যাপ আছে ।  যেমন - Forest, Study Bunny ইত্যাদি।

৪) ই কমার্স অ্যাপস:

 ই কমার্স  অ্যাপ বলতে সাধারনত অনলাইনে সেবা বিক্রয় করা বুঝায়। অ্যাপের মাধ্যমে অনলাইন কোর্স, অনলাইন ভিত্তিক সার্ভিস,  দৈনন্দিন ব্যবহার্য সামগ্রী ইত্যাদি বিক্রয়-ক্রয় করতে অনলাইন প্লাটফর্ম  তৈরি করা। আর প্লাটফর্ম মালিক গ্রাহকদের ক্রয়-বিক্রয় থেকে একটা কমিশন গ্রহণ করে থাকেন। এরকম কিছু অ্যাপ হল - Daraz, Evaly ইত্যাদি।

৫) গেমস:

মোবাইল গেমস হল বর্তমানে গ্রোয়িং একটা প্লাটফর্ম। মোবাইল গেম তৈরি করে বিভিন্ন উপায়ে উপার্জন করা যায়। যেমন- গেমে অ্যাড বসিয়ে, গেমে পেইড ফিচার যুক্ত করে। কিছু জনপ্রিয় গেম হল - Call of Duty, Free Fire ইত্যাদি।

তাছাড়াও মোবাইল অ্যাপ সরাসরি বিক্রি করা যায় বিভিন্ন অনলাইন(গ্লোভাল) ‌বা অফলাইন(লোকাল) মার্কেটপ্লেস অথবা প্রতিষ্টানের কাছে।সরাসরি এ্যাপস বিক্রির কয়েকটি ভাল অনলাইন মার্কেটপ্লেস হল- কোডক্যানিয়ন, ফাইবার ও আপওয়ার্ক । তাছাড়া আছে গুগুলের জনপ্রিয় প্লেস্টোর এবং আ্যাপলের এ্যাপ স্টোর।

Comments

Popular posts from this blog

গিট - এর চৌদ্দ গোষ্ঠী, পর্ব - ০১

গুরুত্বপূর্ণ উবুন্টু লিনাক্স কমান্ড